শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:০২ অপরাহ্ন

এমপি শিমুল রাজাকারের ছেলে দাবি জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের-শিমুল বললেন মিথ্যাচার

admin
  • আপডেট টাইম : রবিবার ২৫ জুলাই, ২০২১
  • ১৫৩০ বার পঠিত

নাটোর, ২৫ জুলাই-
নাটোরে জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সংবাদ সম্মেলনে নাটোর-নলডাঙ্গা আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শিমুলকে রাজাকারের সন্তান বলে দাবি করেছেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃবৃন্দ। তবে এমন দাবিকে মিথ্যাচার দাবি করেছেন এমপি শফিকুল ইসলাম শিমুল।
রবিবার সকালে শহরের কানাইখালী এলাকায় সাহারা রেস্তোরায় সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যের পর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক শফিউল আযম স্বপন ও সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ ডলার। এছাড়া বিলুপ্ত আহবায়ক কমিটির সংবাদ সম্মেলনের প্রতিবাদে জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ মোতায়েনের পরও ভেন্যু মালিককে অনুষ্ঠান করতে হুমকি সহ সংবাদ সম্মেলনে বাধা দেয়া চেষ্টার অভিযোগও করেন স্বপন।
লিখিত বক্তব্যের প্রাক্কালে এমন অভিযোগ করে তিনি বলেন, শনিবার বিলুপ্ত কমিটির সংবাদ সম্মেলনের পর তারা রবিবার সকালে অস্থায়ী দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন আহবান করেন। কিন্তু এই সম্মেলন পন্ড করতে একই স্থানে একই সময় অনুষ্ঠানের ঘোষনা দেয় বিলুপ্ত ওই আহবায়ক কমিটি। সেখানে আজ বিএনপি থেকে অনুপ্রবেশকারীদের দিয়ে পাহারা দেয়া হচ্ছে বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, সংঘাত এড়াতে আমরা বিকল্প স্থান হিসাবে শহরের স্বনামধন্য এই রেস্তোরায় সংবাদ সম্মেলন আহবান করি। সেখানেও তারা রেস্তোরা মালিককে স্থান না দিতে না ধরনের হুমকি ও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। তিনি এর জন্য প্রশাসনের কাছে সমনীতি অবলম্বনের আহবান জানান।
এ সময় লিখিত বক্তব্যে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিউল আযম স্বপন বলেন, নাটোর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক কমিটি গত ২৩ বছরে কোন কমিটি বা কাউন্সিল দিতে না পারায় কেন্দ্র ওই কমিটিকে বিলুপ্ত করে গত ২৯ মে। পরে কেন্দ্রীয় কমিটি যাচাই বাছাই ও দলীয় কর্মকান্ডে ভ‚মিকা অবলোকন করে গত ২০ জুলাই নতুন এই কমিটি ঘোষনা করেন। কমিটিতে সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও ৭৪ পরবর্তী সময়ে নবাব সিরাজ উদ দৌলা সরকারী কলেছে ছাত্রলীগের নির্বাচিত এক মাত্র ভিপি ইশতিয়াক আহমেদ ডলারকে সভাপতি ও আমাকে সাধারণ সম্পাদক করে নতুন কমিটি ঘোষণা করেন। কমিটিতে ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগের অঙ্গ সংগঠনের দায়িত্ব পালনে বিরোধী পক্ষের আক্রমনে বিভিন্ন সময়ে নির্যাতনের শিকার নেতৃবৃন্দকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এই কমিটি ঘোষনার পর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস এমপি ও আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বকুল এমপি সহ সব নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন সংগঠন অভিনন্দন জানান। তার পরই সদর এমপি শফিকুল ইসলাম শিমুল তার পরিবারতন্ত্র ঠিক রাখতে ও স্বাধীনতা বিরোধীসহ দলে অনুপ্রবেশকারীদের স্বার্থ রক্ষায় এই কমিটির বিরোধিতা করছে। তার অংশ হিসাবে বিলুপ্ত কমিটিকে দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে নতুন কমিটির বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে বলে দাবি তার। এ সময় তিনি মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ভিত্তিক রাবি শিক্ষক সুজিত সরকার রচিত “নাটোর জেলার ইতিহাস ঐতিহ্য ও মুক্তিযুদ্ধ ” বইয়ের উদ্বৃতি দিয়ে সাংসদ শফিকুল ইসলাম শিমুলকে রাজাকারের সন্তান বলে দাবী করেন। ইে বইয়ের ৬০০ পৃষ্ঠায় ২১ নং সিরিয়ালে হাসান আলী সরদার নামের ব্যক্তির শিমুল এমপির বাবা বলে দাবি তার। এছাড়া এমপি শিমুলের বিএনপি জামায়াতের কাছে পদ বিক্রি ও আত্মীয়করনের অভিযোগসহ নানা দূর্ণীতি তুলে ধরেন। তিনি দাবী করেন, শিমুল দলে পরিবার করণ করতে গিয়ে পরিবারের ১১ জন সদস্যসহ , ভগ্নিপতি বেয়াইসহ বিএনপি জামায়াত শিবিরসহ যুদ্ধাপরাধী পরিবারের সদস্যদের জেলা আওয়ামীলীগে পদ পদবী দিয়েছেন। এর প্রতিবাদ করায় বিভিন্ন সময় তাকে ও ডলারসহ অনেককে হয়রানি ও কোনঠাষা করে রাখা হয়েছে। এমনকি করোনাকালীন সময়ে অর্থ সহায়তার নামে বিভিন্ন স্থান থেকে চাঁদাবাজীর অভিযোগও আনেন স্বপন। দলে বিভক্তি বা ষড়যন্ত্র না করে নাটোরের উন্নয়নে কাজ করতে শিমুলের প্রতি আহবান জানান জেলা পরিষদের এই সদস্য।
এদিকে কমিটির সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ ডলার বক্তব্যে তারা বাবাকে রাজাকার বলায় আইনী লড়াইয়ের ঘোষনা দিয়ে সদর থানায় একটি মামলা করবেন বলে জানান।
সংবাদ সম্মেলনে নবগঠিত কমিটির নেতৃবৃন্দ ছাড়াও আওয়ামীলীগ , ছাত্রলীগসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সংবাদ সম্মেলন থেকে বিষয়টিকে ষড়যন্ত্র হিসাবে উল্লেখ করে বিশৃঙ্খলা সৃষ্ঠিকারীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিও জানানো হয়।
এর আগে গতকাল শনিবার সকালে শহরের কান্দিভিটা দলীয় অস্থায়ী কার্যালয়ে নতুন কমিটিকে বাতিল করে পুনরায় কমিটি গঠনের দাবী করে সংবাদ সম্মেলন করে বিলুপ্ত আহবায়ক কমিটির নেতারা। পরে নিচে পুলিশ মোতায়েন করে সম্মেলন শুরু হয়।
এদিকে নাটোর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও নাটোর-২ আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল বলেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই নেতা আমার ও আমার পরিবারের সদস্যদের জড়িয়ে কূরুচিপূর্ণ বক্তব্য দিয়েছেন। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। ২০১৪সালের নির্বাচনের আগে যাতে আমি মনোনয়ন না পাই, সেজন্য আহাদ আলী সরকার এবং শরিফুল ইসলাম রমজান অর্থের বিনিময়ে পরিকল্পিত ভাবে বইটি ছাপিয়েছে। যে বইটি লিখেছে, তাকে নাটোরের কোন মু্ক্িতযোদ্ধা চিনে না। এই নিয়ে মুক্তিযোদ্ধারাও প্রতিবাদ করেছে।
তিনি আরো বলেন, নাটোরের সুসংগঠিত রাজনীতি ধ্বংস করছে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এ বিষেয়ে আমি সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে জোর দাবী জানাবো। আমি নিজ তহবিল থেকে করোনাকালে মানুষদের সাহায্য করেছি এবং এখনও করে চলেছি। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানেন।#

 

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..