রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৫৮ অপরাহ্ন

ক্ষমতায় গিয়ে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে: জিএম কাদের

admin@ns
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার ১৪ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৩৩৬ বার পঠিত

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেছেন, দেশের মানুষ ভালো নাই। দেশে এখন সুশাসনের বড় অভাব। নিত্যপণ্যের দাম সাধারণ মানুষের ক্রয়সীমার বাইরে। ঘুষ, দুর্নীতি, ধর্ষণ, খুনসহ নানা অপরাধপ্রবণতা বেড়েই চলছে। দেশের মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে।

এমন জিম্মিদশা থেকে দেশবাসী মুক্তি চায়। তাই দেশের মানুষ এখন জাতীয় পার্টিকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় দেখতে চায়। তিনি বলেন, এ পরিস্থিতিতে নবনির্বাচিত জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতাদের দলকে শক্তিশালী করার শপথ নিতে হবে। রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় গিয়ে দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। দেশে শান্তি ফিরিয়ে আনতে হবে। রংপুরের পল্লী নিবাসে জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কবর জিয়ারত ও দলীয় নেতাকর্মীদের শুভেচ্ছা বিনিময় সমাবেশে শনিবার তিনি এসব বলেন। সকাল থেকেই পল্লী নিবাসে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে নেতাকর্মীরা আসা শুরু করেন। হাজার হাজার মানুষের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে এলাকা।সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন- দলের কো-চেয়ারম্যান সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি, কো-চেয়ারম্যান রুহুল আমিন হাওলাদার, মহাসচিব ও বিরোধীদলীয় হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা, প্রেসিডিয়াম সদস্য মজিবুল হক চুন্নু, জিয়াউদ্দিন বাবলু, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, দলের অতিরিক্ত মহাসচিব রংপুর বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যারিস্টার শামিম হায়দার পাটোয়ারী প্রমুখ। এ সময় দলের কেন্দ্রীয় ৫৪ সদস্যের নেতাদের মঞ্চে পরিচয় করিয়ে দেন মসিউর রহমান রাঙ্গা।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, এরশাদের আদর্শে অনুপ্রাণিত হতেই আমরা তার কবর জিয়ারত করে কার্যক্রম শুরু করলাম। এরশাদের অসমাপ্ত স্বপ্ন প্রাদেশিক রাষ্ট্রব্যবস্থা, নির্বাচন কমিশন সংস্কারসহ ১৮ দফা বাস্তবায়নে সব নেতাকর্মীকে শপথ নিতে হবে। তার দর্শন বুকে ধারণ করে নতুন বাংলাদেশ গড়ার যে স্বপ্ন তা বাস্তবায়িত হলে এরশাদের আত্মা শান্তি পাবে। কবরস্থানে একটি আধুনিক স্মৃতি কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হবে বলেও তিনি জানান। সব বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে জিএম কাদের বলেন, সেদিন আর দূরে নয়, জাতীয় পার্টি দেশের ক্ষমতায় আসার। তাই আগামী সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নেতাকর্মীদের প্রস্তুতি নিতে হবে। দলের নবগঠিত কমিটি গঠন ও আজকের সমাবেশ দেখে আমরা উজ্জীবিত। এ সমাবেশ বলে দেয় জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করে যাচ্ছে।

পরে এক সাক্ষাৎকারে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নিয়ে প্রশ্নের জবাবে জিএম কাদের বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কিনা, তা অবশ্য এখনও বলার সময় আসেনি। আমরা চাই নির্বাচন সুষ্ঠু হোক। এজন্য নির্বাচন কমিশনকে আমরা সহযোগিতা করতে প্রস্তুত।

জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি বলেন, এরশাদের স্বপ্নের বাংলাদেশ গঠনে নতুন কমিটি কাজ করে যাবে- এটা আমার বিশ্বাস। নতুন কমিটি পার্টিকে শক্তিশালী করে দেশে শাসনের ভার নেবে। আর সেই দেশ শাসন ও দলের কাণ্ডারি হবেন দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

উপস্থিত জনতার ঢল দেখে তিনি বলেন, আজকের সমাবেশ বলে দেয় জীবিত এরশাদকে রংপুরের মানুষ যত বেশি ভালোবাসতেন তার চেয়ে প্রয়াত এরশাদের প্রতি রংপুরের মানুষের ভালোবাসা অনেক বেশি। তিনি শুধু রাজনীতিবিদ ছিলেন না, একজন সফল রাষ্ট্রনায়ক ও দেশের উন্নয়নের রূপকার ছিলেন। আমি মন থেকে দোয়া করছি, মহান আল্লাহ যেন তাকে জান্নাতবাসী করেন।

পরে এক সাক্ষাৎকারে জাতীয় পার্টির আগামী নেতৃত্ব নিয়ে সালমা ইসলাম এমপি বলেন, বিগত দিনের সব সংকট কাটিয়ে নবগঠিত কমিটি গঠনের মধ্য দিয়ে দল এখন অনেক শক্তিশালী। দলের কো-চেয়ারম্যান হিসেবে আমি মনে করি দলের নেতৃত্ব এখন সংগঠিত। প্রয়াত চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ইচ্ছা অনুযায়ী দলের চেয়ারম্যানের হাল ধরেছেন তারই স্নেহভাজন ভাই আমাদের নেতা জিএম কাদের। আমি মনে করি, এরশাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। দলের নেতাকর্মীরা এখন আরও বেশি করে দলের জন্য কাজ শুরু করেছেন। আগামীতে জাতীয় পার্টি রাষ্ট্রক্ষমতায় যাবে বলে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি।

মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, দলকে সংগঠিত করতে সব নেতাকর্মীকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। আজ এ কবর জিয়ারতের মধ্য দিয়ে সেই শপথ নিলাম। তিনি উপস্থিত নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, আসুন সবাই দলের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের অসমাপ্ত কাজ বাস্তবায়ন করার জন্য তৈরি হই, শপথ নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..