রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০০ অপরাহ্ন

লালপুরে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন, আটক-০৪-সদরে বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার ও গুরুদাসপুরে শিশুকে গলা কেটে হত্যা

admin
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার ৭ মে, ২০২১
  • ৩৩৩ বার পঠিত

নাটোর, ০৭ মে
নাটোরে ২৪ ঘন্টার মধ্যে লালপুরে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন, সদর উপজেলার ছাতনিতে এক বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার ও গুরুদাসপুরে এক শিশুকে গলা কেটে হত্যার ঘটনা ঘটেছে।
নাটোরের লালপুরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে ছোট ভাই আনসার আলীর হাতে বড় ভাই জান আলী (৬৫) খুন হয়েছেন । শুক্রবার দুপুরে উপজেলার আটটিকা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। নিহত জান আলী একই গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে। এ ঘটনায় ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফজলুর রহমান জানান, পারিবারিক সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জেরে শুক্রবার দুপুরে ছোট ভাইয়ের সাথে বাকবিতন্ডা হয় বড় ভাই জান আলীর। এ সময় ছোট ভাইয়ের সাথে তার ছেলেরা মিলে জান আলীকে মারপিট করলে গুরুতর জখম হন তিনি। পরে তাকে উদ্ধার করে পরিবারের লোকজন লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ জান আলীর ছোট ভাই এবং তার ছেলেদের ৪ জনকে আটক করেছে। আটককৃতরা হলো জান আলীর ভাই আনসার আলী (৫২) ও তার ভাতিহজা মোঃ মতিউর রহমান (৩০), মোঃ আশিক (১৫), মোঃ মামুন (১৮)।
এদিকে নাটোর সদর উপজেলার আগদিঘা কাটাখালী এলাকায় বাড়ির পাশের একটি আখ ক্ষেত থেকে ওহাব আলী মিরাজী (৭৯) নামে এক বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার সকালে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সদর থানার ওসি (তদন্ত ) আব্দুল মতিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। নিহত ওহাব আলী নাটোর সদর উপজেলার আগদিঘা কাটাখালী এলাকার মৃত কেরামত আলী মিরাজীর ছেলে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সকালে ওহাব আলী মিরাজীর বাড়ির পাশের একটি আখের জমিতে তার মরদেহ পরে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। পরে পুলিশ এসে মরদেহটি উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্তের জন্য পাঠায়।
অপরদিকে নাটোরের গুরুদাসপুরের সাবগাড়িতে মহিবুল্লাহ নামে ৬ বছরের এক শিশুকে গলা কেটে নির্মম ভাবে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা। পরে তার গলাকাটা মরদেহ বাড়ির থেকে কিছুটা দূরের একটি ভুট্টা ক্ষেত থেকে উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার সাবগাড়ী রাবার ড্যাম এলাকার ভিটাগাড়ী ভুট্টা ক্ষেত থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। নিহত মহিনবুল্লাহ সিংড়া উপজেলার মহিষমারী গ্রামের পল্লী চিকিৎসক ইসাহাক আলীর ছেলে। গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক ও স্থানীয়রা জানান, মহিনবুল্লাহ কয়েকদিন আগে তার মায়ের সাথে নানা বাড়ী গুরুদাসপুরের সাবগাড়ীতে বেড়াতে আসে। বৃহস্পতিবার বিকেলে তার মায়ের মোবাইল ফোন নিয়ে কাটুন দেখতে দেখতে বাড়ীর বাহিরে বের হয়ে যায়। পরে অনেক সময় সে বাড়ীতে ফিরে না আসলে তাকে খোঁজাখুজি শুরু হয়। অনেক খুজেও মহিনবুল্লাহর কোন সন্ধ্যান পাওয়া যায়নি। পরে রাত ৯টার দিকে বাড়ীর অদুরে একটি ভুট্টার ক্ষেতের ভিতরে গলা কাটা মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে তার হাতের মোবাইল ফোনটি ছিনিয়ে নিতে তাকে হত্যা করে মরদেহটি ফেলে গেছে হত্যাকারী। ঘটনাটি তদন্ত শুরু করেছে গুরুদাসপুর পুলিশ। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। #

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..